Chez Roopen‎ > ‎

The Weathercocks are for turning





প্রশান্তদা উবাচ 


পবন কুক্কুটরা ঘুরে  দাঁড়াচ্ছেন 



নেব্রাস্কার করোনা অবস্থা বেশ করুণ  ! তাই বাধ্য হয়ে প্রশান্তদাকে স্কাইপে ধরলাম !

প্রশান্তদা বললেন : বেরোচ্ছিলাম, ব্যাটা ট্রাম্পের গুষ্টির তুষ্টি করবো এই নির্বাচনে !

আমি বললাম -সেই দিন অবধি ট্রাম্পের সমালোচনা মুখে আনতে না, এখন তার সপিন্ডকরণ করছো ?

উনি বললেন : বুঝলি হাওয়া ঘুরে গেছে , করোনার দাপটে ডোনাল্ডভাই এখন মুক্তকচ্ছ , স্বয়ং ঈশ্বর মর্তে অবতরণ করলেও তাঁকে জেতাতে পারবেননা !

আমি: তাই তুমি পবন কুক্কুটের মতো ঘুরে গেছো ?

প্রশান্তদা : সময়ের সঙ্গে তো  মত পরিবর্তন করতেই হবে, পারেনি বলেই তো ডায়নোসাররা দুনিয়া থেকে বিলুপ্ত !

আমি: রাজনীতিতে কিছু বলা যায় দাদা, শেষ দৃশ্যে যদি ট্রাম্প সাহেব তুরুপের তাস ফেলে দেন -যাকে বলে ট্রাম্প কার্ড !

প্রশান্তদা : ওটি হবার যে নেই ! করোনার জেরে আমেরিকা জেরবার , সোমালিয়া আর বাংলাদেশ এমনকি ভারতের থেকেও আমাদের অবস্থা সঙ্গীন, বাইডেন ক্যান্টার করে বেরিয়ে যাবে, ডোনাল্ডের ভোট ব্যাংকে ধ্বস নামবে ! সে যাক আমরা জিতছি , কিন্তু চিন্তা হচ্ছে ভারতকে নিয়ে ! ফেকুটা তো মনে হচ্ছে ক্ষমতা আঁকড়ে বসে থাকবে। আমি স্যাম পিত্রোদাকে বুদ্ধি দিচ্ছি, ম্যানহাটান থেকে রাহুলজী মোক্ষম টুইট ঝাড়ছেন, এবার ব্যাটার কোমর ভাঙলো বলে !

আমি : ২০২৪এর আগে কিস্যু হবে না, রামখেল ত্রিলোক সিং যতই লাফ ঝাঁপ করুক !

প্রশান্তদা : আমাদের কোনো উপদেশই শুনছেনা মোদীজি , ২০২৪ অবধি থাকলে তো ভারতের অর্থনীতি ভেন্টিলেটর থেকে বৈদ্যুতিক চুল্লির দিকে রওনা হবে ! তার আগে ব্যাটাকে অর্ধচন্দ্র দিতে হবে যাকে বলে প্রহারেণ ধনঞ্জয় ! উনি গিয়ে একটা চায়ের দোকান দিন, পশু পাখিদের খাওয়ান, রাজ্য শাসন ওনার দ্বারা হবে না ! বার্ষিক ৬০% হারে  অর্থনীতি পড়ছে  , এবার তো কেউ খেতে পাবে না রে !

আমি : না , তার আগে কলকাতা জলে ডুবে যাবে !

প্রশান্তদা: কেন, জলে ডুববে কেন ?

আমি: ডুববে না? জুলাই মাসে ২৬৫ মি.মি. বর্ষণ হয়েছে , তাহলে সারা বছরে ৩১৮০ মি.মি. বর্ষণ হবে , যা ইতিহাসে হয় নি, এবং হুগলির প্লাবনে কলকাতা নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে !

প্রশান্তদা: না না তোরা কালবিলম্ব না করে মোদিকে সরিয়ে দে, নাহলে দেশের সমূহ বিপদ, আমরা ডোনাল্ডকে সরাচ্ছি !

আমি: আচ্ছা তোমরা তো নির্বাচন করেই বাইডেনকে আনার চেষ্টা করছো ,তা ভারতবর্ষের বেলায় গণতান্ত্রিক পদ্ধতি নয় কেন ?

প্রশান্তদা: ভাই একটা ফ্যাসিস্ট নেতাকে নির্বাচনে সরানো যায় না, বিপ্লব কিংবা জবরদস্তি করে হটাতে হবে !

আমি: ফ্যাসিস্ট কথাটা খুব সস্তা ! এলোন মাস্ক বলেছেন মার্কিন সরকার ফ্যাসিস্ট, করোনার লকডাউন সংবিধান বিরোধী ! মার্কসবাদীদের মধ্যে তুমুল বিতর্ক : সীতারাম বলছেন ভারত সরকার ফ্যাসিস্ট , প্রকাশ করাত দুই দিকে কাটছেন , বলছেন সরকার স্বৈরাচারী কিন্তু ফ্যাসিস্ট? নৈব নৈবচ ! তাছাড়া যদি -ধুত্তোর বলে মোদিজী ছেড়ে দেন -কে প্রধান মন্ত্রী  হবেন ?

প্রশান্তদা: দু দুটো প্রার্থী আছে , এক রাহুলজী আর দুই বাংলার গর্ব ! আর পশ্চিমবঙ্গে সেই স্বর্ণযুগ ফিরিয়ে আনতে হবে, মাড়োয়ারি আর বিহারীদের খুব বার বাড়ন্ত হয়েছে !"

আমি : "তা তো বটেই , গোটা শাসকদল একজন বিহারী ভদ্রলোকের অঙ্গুলিহেলনে উঠছে আর বসছে !'

প্রশান্তদা" কিন্তু দিদিকে একুশে কেউ হারাতে পারবে না , ভাজপার কোনো মুখ নেই, ফিলিপদা গরুর দুধে সোনা খুঁজছেন আর তথাগতবাবুকে পাবলিক নেবেনা !"

আমি : ধরো যদি সৌরভ গাঙ্গুলি মাঠেই যাবে , তাহলে দিদি বনাম দাদা জমবে না ?"

প্রশান্তদা: যা: সেই রকম  কিছু  শুনছিস নাকি -তাহলে তো সর্বনাশের মাথায় বাড়ি ! বলিস কি ?

আমি : কমরেড গুজবে কান দিবেন না !

প্রশান্তদা: হ্যাঁ আমি একটু ঘাবড়ে গিসলাম! তবে সৌরভ বুদ্ধিমান ছেলে চাড্ডিদের ফাঁদে পা দেবার লোক সে নয় ! তবে সৌরভ মাঠে নামলে খুব সমস্যা হবে !! তবে দিল্লীর মসনদ দুলছে গেছে, ময়ূর নাচিয়ে কিছু হবে না ! যাইহোক আমার রাহুলজীর সঙ্গে ম্যানহাটানে মিটিং আছে -সব অনাবাসী অর্থনীতিবিদদের ডেকেছি -টা টা বাই ফর নাউ ! আর শোন যদি সত্যি সত্যি সৌরভ মাঠে যাবে , তাহলে ভেবে দেখবো।, কোনদিকে ঘুরবো ! 






Comments