Chez Roopen‎ > ‎

Prasantada 21

Statutory Warning: Smoking is injurious to health

প্রশান্তদা উবাচ: দিন বদলের পালা  -২১



প্রশান্তদার ফোন । কিন্তু গলাটা মেনি বেড়ালের মতো ! হুলো সুলভ উদাত্ততা চলে গেছে !

"এই তোদের ওখানে কি সব রোগ হচ্ছে শুনছি , টিকিট কাটছি কলকাতা যাওয়ার ! সেফ তো ?"

"হ্যাঁ এখানে গোপন রোগ হচ্ছে -বেশ ছড়াচ্ছে !"

"কি রোগ রে ?"

"প্রশ্ন সেটাই ! কি রোগ? গেছো দাদা কোথায় আছেন জানতে গেলে প্রথমে জানতে হবে তিনি কোথায় কোথায় নেই ! এই রোগটা গোপন বটে কিন্তু সিফিলিস নয় , পেনিসিলিনে সারছে না ! কিন্তু গোপন রোগ !

"কি ভাবে ছড়াচ্ছে ?"

"দিনের বেলা একটা অজানা পোকা এসে চুপি চুপি কামড়ে যাচ্ছে আর অমনি ধুম জ্বর , প্লেটলেট কমছে, তারপর কেউ কেউ ফর্সা ! এই রহস্য ভেদ করতে মিথ্যান্বেষী  চমকাস চোকসি এসেছেন , যারা গুজব ছড়াচ্ছেন তাঁদের চমকানো হবে, প্রয়োজনে বৃন্দাবন দেখানো হবে ! আসলে কিছুই হয় নি তুমি টিকিট বুক করো! পরে দাম বেড়ে যাবে , এবার পৌষ মেলার ওপর একটা ডকুমেন্টারি তুলতে হবে না ? সাজা  বাউলের গানের সঙ্গে মিশবে নোটবন্দি আর জি এস টির দুর্দশা ।"

" তাহলে চলে আসি কি বল -অজানা ভ্যাকসিনটা সিঙ্গাপুরে নিয়ে নেবো !"

"তুমি এখন কি নিয়ে গবেষণা করছো?"

"শরীরটাই পরে আছে নেব্রাস্কাতে রে ! কিন্তু আমার মন প্রাণ হৃদয় সে তো দেশেই রে-শয়নে স্বপনে জাগরণে সেই মাতৃভূমির কথাই ভাবি ! তাছাড়া যদি আমেরিকা নিয়ে বলি আমাকে কে পাত্তা দেবে বল ? ট্রাম্পকে নিয়ে বললে চাকরিটিও যেতে পারে ! "

"তা কি লিখছো ?"

"আমি একটা বই লিখছি - ইন্ডিয়া আফটার মোদী অর্থাৎ মোদ্যান্তে ভারত ! মোদী ক্যাশট্রেশন করে ভারতীয় অর্থনীতিকে নপুংসক করে দিলো তারপর গোদের উপর বিষফোড়ার মতো জি এস টির কেলোর কীর্তি -ভারতের প্রগতির ঘোড়া মুখ থুবড়ে পড়লো , থেমে  গেলো জি ডি পি , নেমে গেলো কর্মসংস্থান -জনগণ রুখে দাঁড়ালেন -উল্টে গেলো মোদির গদি  ! ২০১৯ -আবার সুদিন ফিরে এলো ! মোদী যাই করুক না কেন হুঁহুঁ বাবা এটা  ভারতবর্ষ ! আমাদের দেশে গণতন্ত্র আর সহনশীলতার পরম্পরা ! যা চীনে নেই ! অতএব জয় আমাদের হবেই -আমরা আবার করবো প্রমান যে মাওয়ের পথ নয় , গান্ধীর পথ হলো প্রগতি আর উন্নয়নের পথ ?"

"তুমি কোন গান্ধীর কথা বলছো ?"

"বইয়ে ওই জায়গাটা একটু ভেগ রাখবো -বাবা গান্ধী না গান্ধী বাবা দেখতে হবে ! দেখলি তো বাবালোগ গান্ধী বলেছেন অনাবাসী ভারতীয়রাই ভারতের দিকপ্রদর্শক -নেহরু , গান্ধী , আম্বেদকর সবাই অনাবাসী ভারতীয় ছিলেন -তবে যে লোকটা এখনো দেশেই ফিরলো না তাকে কেন বাদ দিলো রে?"

"এতো কষ্ট করে বইটা লিখছো , যদি ২০১৯ -এ পালা  বদল না হয় ? "

" তাহলে তো আমাদের ঘন্টা বেজে যাবে রে , বইটা তো তুচ্ছ  ক্ষতি । এতো ভবিষ্যৎবাণী করছি নেব্রাস্কায় বসে বসেই -আমরা তো আর কল্কে পাবো না ! আমাদের দেশের ঐতিহ্য , দেশের সম্মান , ভারতের "স্বাভিমান" -সব ভুলুন্ঠিত হবে ওই ব্যাটা থাকলে! আমাদের অর্থনৈতিক উপদেশ কেউ শুনবেনা , আমাদের সেমিনারে কেউ ডাকবে না, আমাদের পদ্মশ্ৰী কেউ দেবে না , আমাদের কদর থাকবে না -এটা  হতেই পারে না ! কোথায় একটা বাজে লোক যে কেমব্রিজের ডক্টরেট অবধি পায় নি তাকে নিয়ে নাচানাচি আর আমি উলংগঙের ডক্টরেট আমার উপদেশ শুনবি না ?"

"শুনেছ মুকুল রায় বদল করেছে -নতুন নতুন কথা বলছে রোজ!"

"তৃণমূল নেতারা কি বলছে ?"

"সেটা শচীন কর্তার গানেই বলি :

হাসো না হাসো না সে হাসি মধুময়
তুমি আর নেই সে তুমি
জানি না জানি না কেন এমনও হয়
জানি না
জানি না জানি না কেন এমনও হয়
তুমি আর নেই সে তুমি
তুমি আর তুমি আর
তুমি আর নেই সে তুমি





Comments