Chez Roopen‎ > ‎

Prasantada -18



· 

প্রশান্তদা উবাচ : ধর্ষণের দর্শন


মহীনের ঘোড়াগুলি আমার খুব প্রিয় ! আমি গানের কথা বলছি ! একটা গান কাল রাতে আবার শুনছিলাম : "আমি ডান দিকে রই? না আমি বাম দিকে রই ? আমি দুই দিকে তেই রই , নীতি জলাঞ্জলি দিয়া রে !"

এ এক কিম্ভূত অন্ধকার , রাস্তা হাতড়ে বেড়াতে হয় ! কোথায় যাবো , ডান দিকে না বাম দিকে, না রাস্তায় দাঁড়িয়ে কাঁদবো ?

জীবনানন্দের কবিতা থেকে ওঠে এসেছিলো তারা :

"আমরা যাইনি ম’রে আজো -তবু কেবলি দৃশ্যের জন্ম হয়;
মহীনের ঘোড়াগুলো ঘাস খায় কার্তিকের জ্যোৎস্নার প্রান্তরে; 
প্রস্তরযুগের সব ঘোড়া যেন -এখানে ঘাসের লোভে চরে
পৃথিবীর কিমাকার ডাইনামোর প’রে।"

এখনো তারা ঘাসের অন্বেষণে আছে কিনা জানা নেই , তবে "তিন পয়সার পালা" র মহীন কিন্তু জোর কদমে চলেছে ! সেই মহীনকে আপনাদের মনে আছে কি ? ব্রেখটের নাটকের রূপান্তর করেছিলেন অজিতেশ ।
তাতে একটি গান ছিল -স্মৃতি থেকে লিখছি একটু ভুল চুক হতে পারে :

"হয়তো তোমরা হাঙ্গরেরও দাঁত দেখতে পাবে 
কিন্তু যখন মহীনবাবুর ছুরিটা চমকাবে তখন দেখতে পাবে না হা , পাবে না 
এইতো সেদিন একটি মেয়ের সতীত্ব নাশ করে 
মহীনবাবু রাস্তা দিয়ে চলেন বুক ফুলিয়ে 
কারু বাক্যি সরে না সরে না !"


সেই মহীন বাবু ঘাসফুলের লোভে এখনো চরে , এখনো তার ছুরি লাশ ফেলে , এখনো সে বুক ফুলিয়ে বলাৎকার করে বেড়ায় !


আমার পরম গুরু পতিতপাবন প্রশান্তদাকে ফোন করলাম , নেব্রাস্কাতে !
প্রশান্তদা বললেন , " এখন আমার ছুটি তাই একটা বই লিখছি -"পোপ , পাপ , গ্যালিলিও এবং ঋক বেদ !"
"সে কি তুমি তো অর্থনীতির লোক, তুলনামূলক ধর্ম নিয়ে লিখছো ?"
"ধর্ম তো দর্শন আর অর্থনীতির নীতি তো দর্শন, তাই না , জীবন দর্শন !"
"তা পোপের সঙ্গে ঋক বেদ কিঁউ ?"
"আমাদের গণতান্ত্রিক ঐতিহ্য পাশ্চাত্য দেশের থেকে অনেক প্রাচীন ! যখন শাহানসা আকবর দিন-ই-ইলাহী লিখছেন ---"
"সে কি উনি তো নিরক্ষর ছিলেন-"
"ঠিক আছে ---যখন লেখাচ্ছিলেন ---তখন ওনারা জিওর্দানো ব্রূনো কে আগুনে জ্যান্ত পোড়াচ্ছিলেন ! কি দোষ , না বৈধর্ম্য! বাপু হে , জিওর্দানো তো চার্চের পূজারী , কোনো সভ্য সমাজ এরকম করে ? "
"কিন্তু আকবরের নাতি এসে তো হিন্দু মন্দির তছ নছ করেছিলেন , জিজিয়া কর বসিয়েছিলেন কাফেরদের উপর , সংগীত নিষিদ্ধ করেছিলেন -দিন-ই-ইলাহী ফেরিওয়ালার কাছে ওজন দরে বেচে দিয়েছিলেন , হত্যালীলা চালিয়েছিলেন !"
"ওসব কোর্টে প্রমান হয় নি , অদ্রে তরুষকের বইটা পর -কত মন্দির ভেঙেছিলেন আওরংজেব তার সঠিক সংখ্যা কেউ জানে না , বিতর্কিত, সাব জুডিস ব্যাপারে মন্তব্য করিস না !"
"কিন্তু আমি তো পোপের সঙ্গে গ্যালিলিওর এবং গ্যালিলিওর সঙ্গে তাঁর মেয়ের চিঠি পড়েছি ! পোপ গ্যালিলিওকে শ্রদ্ধা করতেন, তাই তিনি প্রাণে বেঁচে যান !"
"আরে বইটা পরে দেখবি , একেবারে রোমহর্ষক !"
"দর্শন পরে হবে , আমাদের এখানে ধর্ষণের জীবনদর্শন চলেছে !"
"হ্যাঁ দেখলাম ভাজপা নেতার একজন ছেলে একজন মেয়েকে গাড়িতে করে সাত মাইল তাড়া করে ছিল ! অপহরণ করার জন্য , ব্যাটা রাবণকে ধরে রাম ক্যাললোনা কেন ?"
"সে রামই হোক আর রহিমই , আইন তো আইনের পথে চলবে , ভাজপা নেতার ছেলে বলে মনু শর্মার মতো ছাড়া পাওয়া উচিত নয় !"
"তবে কি ধর্ষণ রে , রাজনীতির ধর্ষণ না ধর্ষণের রাজনীতি?'

"একজন গরিব মহিলা, সন্দেশখালিতে ভাতের হোটেল চালাতো , কয়েকটা মদ্যপকে বলেছিলো এখানে ঝামেলি কোরো নি !' দাদাদের মুখের উপর কতা ! তাঁকে অত্যাচার করে , গণধর্ষণ করে , হত্যা করা হয়েছে ! কোথায় মোমবাতি মিছিল, কোথায় সুশীল সমাজের গর্জন , একটা গরিব ছোটলোকের মেয়ে যে ! এদিকে গরুতে যদি একটা পাগল নিহালিনি বিপ দেয় তো আ-বোস্টন (Boston) বনগাঁ , ফেসবুক থেকে টুইটার থর থর করে কেঁপে ওঠে, কিন্তু সেই ভন্ড বিদ্দ্বজ্জনরা , ইতি উতি তাকায় , হয়েছে নাকি, খবরটা ঠিক জানেন তো, ভুয়ো নয় তো ?     আর সরকার বলেন ----ওর ছেলেকে একটা সরকারি চাকরি দিয়ে দাও আর কিছু টাকা ! যার মাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে সে নতমস্তকে টাকা নেবে , সরকারি কাজে যোগ দেবে ,মহামান্য সরকারকে বলবে ," ধন্যবাদ, অনেক ধন্যবাদ আপনাদের!" কোনোদিন ঘুমের ঘোরে সে বলে ফেলবে নাতো -ভাগ্যিস ওরা আমার মাকে ধর্ষণ করে খুন করেছিল, তাই তো চাকরিটা পেলাম।"

এটা ওর লজ্জা নয়, এ লজ্জা আমাদের -হ্যাঁ আপনার আর আমার !"

Comments